ওরালস্যালাইনের জনক ডা: রফিকুল ইসলামের মৃত্যু বার্ষিকী আজ

বিশ্বের কোটি কোটি শিশুর জীবনরক্ষাকারী ওরালস্যালাইনের (ORS) আবিস্কারে ও ব্যবহার বাড়াতে যার অসামান্য অবদান,অনন্য সেই ডা. রফিকুল ইসলামের আজ মৃত্যুদিবস। ব্রিটিশ মেডিক্যাল জার্নাল ‘দ্য ল্যান্সেট’ ওআরএস-কে চিকিৎসাবিজ্ঞানে এটাকে বিংশ শতাব্দির সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অবদান বলে উল্লেখ করেছে। তিনি ছিলেন একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা, কেবল ডাক্তার হিসেবেই না, বিক্রমপুর অঞ্চলে সশস্ত্র মুক্তিযুদ্ধেও তিনি অংশগ্রহণ করেন। খাওয়ার স্যালাইনের আবিষ্কারে যাদের অবদান ছিলো তাদের মধ্যে অন্যতম ডা. রফিকুল ইসলাম (১৯৩৬ – ৬ই মার্চ, ২০১৮) একজন বাংলাদেশী চিকিৎসক ও চিকিৎসা বিজ্ঞানী।

১৯৭১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধ চলাকালীন সময়ে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের শরনার্থী শিবিরগুলোতে কলেরা ছড়িয়ে পড়লে একমাত্র চিকিৎসা হিসেবে শিরায় স্যালাইন (ইন্ট্রাভেনাস) দেওয়া হোত। কিন্তু ইন্ট্রাভেনাসের স্বল্পতার কারণে তাঁর আবিষ্কৃত খাবার স্যালাইন দিয়ে এই রোগ থেকে সুস্থতা লাভ সম্ভব হয়েছিলো। ১৯৮০ সালে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা খাবার স্যালাইনকে স্বীকৃতি দেয়। বাংলাদেশের স্বাধীনতার পর ডায়রিয়ার চিকিৎসায় স্যালাইনের ব্যবহার নিয়ে ব্যাপক প্রচারণা চালানো হয়। এটি “ঢাকা স্যালাইন” নামেও পরিচিতি পেয়েছিলো। ঢাকা মেডিক্যাল কলেজের গ্র্যাজুয়েট রফিকুল ইসলাম শেষ জীবনে সামাজিক সংগঠনের সাথেও জড়িত ছিলেন।” মৃত্যুদিবসে এই সূর্যসন্তানকে জানাই গভীর শ্রদ্ধাঞ্জলি।

Print Friendly, PDF & Email
×

সারা বাংলা সারা দিন-এর সাথেই থাকুন!