কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে দু’দল ডাকাত ও পুলিশের ত্রিমুখি সংঘর্ষে দুই ডাকাত নিহত : অস্ত্র ও গুলি উদ্ধার

বাদশা আলমগীর, কুষ্টিয়া থেকে : মঙ্গলবার ভোর ৪টার দিকে কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার আদাবাড়িয়া-ডাংমড়কা সড়কের পার্শ্ববর্তী পেটকাটা ডহর মাঠে দুই দল ডাকাত ও পুলিশের মধ্যে ত্রিমুখি গুলাগুলির ঘটনায় মুফা(৪২) ও মাহাবুল(৪০) নামের ২ জন ডাকাত সদস্য নিহত এবং ২জন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছে । ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ ২টি দেশীয় তৈরী এলজি বন্দুক, ৪ রাউন্ড গুলি ও ১টি রামদা উদ্ধার করেছে। নিহত মোফাজ্জেল হোসেন ওরফে মুফা কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার আদাবাড়িয়া ইউনিয়নের গরুড়া গ্রামের মসের উদ্দিনের পুত্র এবং নিহত মাহাবুল হোসেন মথুরাপুর ইউনিয়নের কৈপাল গ্রামের আব্দুর রহহমানের পুত্র বলে জানা গেছে।

কুষ্টিয়ার দৌলতপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে আমরা জানতে পারি উপজেলার আদাবাড়ীয়া- ডাংমড়কা সড়কের পেটকাটা ডহর মাঠে দুই দল ডাকাতের মধ্যে গুলাগুলি চলছে। এমন সংবাদের ভিত্তিতে দৌলতপুর থানা পুলিশের একটি টিম ঘটনাস্থলে গেলে পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলিবর্ষণ শুরু করে। এ সময় আত্মরক্ষার্থে পুলিশও পাল্টা গুলি ছুড়লে প্রায় আধা ঘন্টা ত্রিমুখী বন্দুকযুদ্ধের পর ডাকাতরা পালিয়ে যায়। পরবর্তিতে ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ গুরুতর আহত অবস্থায় ২ জনকে উদ্ধার করে দৌলতপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করে। ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ ২টি দেশীয় তৈরী এলজি বন্দুক, ৪ রাউন্ড গুলি ও ১টি রামদা উদ্ধার করেছে। এ সময় দৌলতপুর থানার এস.আই আসাদ হোসেন ও কনস্টেবল মো: জিয়া আহত হয়।

গুলাগুলিতে নিহত ব্যক্তিদ্বয় চিহ্নিত ডাকাত সদস্য। তাদের বিরুদ্ধে ডাকাতি, ছিনতাইসহ নানা অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডের মামলা রয়েছে। নিহত মুফা গাংনীর পীরতলা ক্যাম্পের পুলিশ কনস্টেবল আলাউদ্দিন হত্যা মামলার অন্যতম আসামি।

Print Friendly, PDF & Email
×

সারা বাংলা সারা দিন-এর সাথেই থাকুন!