চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে গৃহবধূকে ধর্ষণ

নাটোরের বড়াইগ্রাম উপজেলার মাঝগ্রাম হাদিস মোড় এলাকার চা বিক্রেতা মিলন হোসেনের স্ত্রী সোহাগী বেগমকে এলাকার বখাটে ছেলে মাসুদ চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে বাড়ি থেকে নিয়ে গিয়ে আট দিন ধরে ধর্ষণ করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। বখাটে মাসুদ হাদিস মোড় এলাকার গ্রাম্য প্রধান মালেক হোসেনের ছেলে।

চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে গৃহবধূকে ধর্ষণ

জানা যায়, গত ১৮ই ফেব্রুয়ারি সোমবার সকাল ১১ টার দিকে গৃহবধূ সোহাগীকে বাড়ি থেকে হাসপাতালে যাওয়ার কথা বলে বের হয়ে বখাটে মাসুদের সঙ্গে চাকরির আশায় চলে যায়। কিন্তু মাসুদ তাকে নিয়ে গিয়ে চাকরির কথা বলে অজ্ঞান করে ঈশ্বরদীর পাকশী এলাকার মঞ্জুয়ার রিসোর্ট নামে একটি পার্কে আটকে রেখে আট দিন ধরে শারীরিকভাবে নির্যাতন করে ও রিসোর্টের দালালদের কাছে বিক্রি করে দেয়। পরে গৃহবধূ সোহাগী বুঝতে পেরে নানা কৌশলে পালিয়ে রিসোর্ট থেকে বেরিয়ে এম এস কলোনীর একটি বাড়িতে গিয়ে আশ্রয় নেয়। পরে ঐ বাড়ির লোকজন সোহাগীকে নিরাপদে তার বাড়িতে পৌঁছে দেয়।

এ ব্যাপারে বড়াইগ্রাম থানায় গৃহবধূ সোহাগীকে অপহরণের সন্দেহে ধর্ষক মাসুদের বিরুদ্ধে একটি সাধারণ ডায়েরি করেন গৃহবধূর স্বামী মিলন হোসেন। আট দিন পর সোহাগী বাড়ি ফিরলে মিলন থানায় ফোন করে জানান যে, তার স্ত্রী বাড়ি ফিরে এসেছে। পরে সোহাগী বেগমকে অসুস্থ অবস্থায় দেখে জিজ্ঞাসা করলে তিনি বাড়ির সকলকে জানায় যে, মাসুদ তাকে চাকরির কথা বলে বাড়ি থেকে নিয়ে যায় এবং আট দিনই তার ওপর অমানবিক নির্যাতন চালায় ও দালালের কাছে বিক্রি করে দেয়। সে তার নিজ বুদ্ধিতে পালিয়ে এক বাড়িতে আশ্রয় নিলে সেই বাড়ির লোকজন তাকে নিজ বাড়িতে পৌঁছে দেয়।

ঘটনা সম্পর্কে পাকশী এম এস কলোনীর খানকা শরিফ পাড়া এলাকার ফাতেমা বেগমের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন ঘটনাটি সত্য। হঠাৎ করে দেখি আমার উঠানে একটি মেয়ে এসে অসুস্থ অবস্থায় পড়ে গেল। আমি তাকে ঘরে নিয়ে সেবা করে সুস্থ করে বাড়ি নিয়ে যাই এবং বাড়ির সকলকে বলেছি ঘটনা সম্পর্কে কিছু জানতে চাইলে আমি সর্বদা প্রস্তুত আছি।

এ ব্যাপারে ধর্ষক মাসুদের নিকট জানতে চাইলে সে বলে আমি যেটা করেছি সেটা ভুল করেছি। আমি আর কখনও এমন কাজ করবো না। দয়া করে আপনারা এই সংবাদ প্রকাশ করবেন না।

পরে ধর্ষিত সোহাগী বেগম থানায় মামলা করতে চাইলে ধর্ষকের বাবা এলাকার প্রধান মালেক হোসেন বলেন, আমার ছেলের বিরুদ্ধে যদি থানায় কোনো অভিযোগ যায়, তাহলে কাউকে আস্ত রাখবো না। সকলকে এলাকা থেকে বের করে দিবো, পা কেটে দিবো ইত্যাদি।

Print Friendly, PDF & Email
×

সারা বাংলা সারা দিন-এর সাথেই থাকুন!