জঙ্গি ও মাদকের বিরুদ্ধে অবস্থান বলেই আ’লীগের বিজয়

সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, মাদক ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে অবস্থান বলেই একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জনগণ আবারও আওয়ামী লীগকে বিজয়ী করেছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সোমবার (১১ মার্চ) রাতে স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংসদ অধিবেশনে রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর আনা ধন্যবাদ প্রস্তাবের আলোচনা এবং একাদশ জাতীয় সংসদের প্রথম অধিবেশনের সমাপনী ভাষণে অংশ নিয়ে তিনি এ কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, নৌকার বিজয় জনগণের ভোটের রায়ে হয়েছে। জনগণ আমাদের স্বতঃস্ফূর্ত ভোট দিয়েছে কারণ আমরা জনগণের কাছে আগে যে ওয়াদা দিয়েছিলাম সেটা রক্ষা করেছি। 

তিনি বলেন, জনগণ সন্ত্রাস, মাদক, জঙ্গিবাদ, দুর্নীতি এগুলো দেখতে চায় না। এগুলোর বিরুদ্ধে আমাদের অবস্থান। আমরা যে উন্নয়ন করেছি তাতে জনগণের আস্থা জাগ্রত করতে পেরেছি। এসব কারণেই তারা আমাদের ভোট দিয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ২০০৮ সালের নির্বাচনে ৮৪ ভাগ ভোট পড়েছে। এবার ভোট পড়েছে ৮০ ভাগ। তখন বিএনপি-জামায়াত মিলে মাত্র ২৮টি সিট পেয়েছিল। সেটা বোধ হয় তারা ভুলে গেছে।

তিনি বলেন, এবার তারা দেখাতে পারেনি কে তাদের প্রধানমন্ত্রী হবে। সাজাপ্রাপ্ত আসামিকে তারা বানালো দলের চেয়ারপারসন। একজন দুর্নীতির দায়ে কারাগারে আরেকজন পলাতক। জনগণ কাকে ভোট দেবে। ঐক্যফ্রন্ট নির্বাচিত হলে কে প্রধানমন্ত্রী হবে তা জনগণকে দেখাতে পারে নাই। জনগণ তাদের ভোট দেয়নি।

খালেদা জিয়া ও তারেক জিয়া প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেন, যে দলের চেয়ারপারসন দুর্নীতি করে সাজাপ্রাপ্ত হয়েছে। ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসন একজন দুর্নীতিবাজ সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামি। জনগণ তাদের কেন ভোট দেবে। এ কারণেই জনগণ আমাদের ভোট দিয়েছে। জনগণ যাচাই করে ভোট দেয়।

বিএনপি মনোনয়ন বাণিজ্য করেছে অভিযোগ করে শেখ হাসিনা বলেন, তারা নির্বাচনে মনোনয়ন দিয়েছে। এজন্য লন্ডন থেকে টাকা চেয়ে পাঠানো হয়েছে। অনেক প্রার্থী ছিল মনোনয়ন দিলে তারা জিতে আসতো। কিন্তু টাকা দিতে পারেনি তারা মনোনয়ন পায়নি। যারা জনগণের ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছে তারা সংসদে এসে কথা বলুক এটা আমরা চাই।

বিগত সময়ে আওয়ামী লীগ সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন ও জনকল্যাণমূলক কাজের কথা তুলে ধরে টানা তিনবারসহ চারবারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, এবারের নির্বাচনে দেশের মানুষ, বিশেষ করে তরুণ যারা প্রথমবার ভোটার, নারী ভোটাররা ব্যাপকভাবে আওয়ামী লীগকে ভোট দিয়েছে।

তিনি আরও বলেন, প্রবাসীরাও যারা নির্বাচনের সময় দেশে আসতে পারেনি তারা স্কাইপি, বিভিন্নভাবে দেশে তাদের আত্মীয় স্বজন যারা আছে তাদের নৌকায় ভোট দিতে বলে।

জনগণের কাছে দেওয়া ওয়াদা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, জনগণের কাছে দেওয়া ওয়াদা আমাদের রক্ষা করতে হবে। জনগণ নৌকা মার্কায় ভোট দিয়েছে বলেই আজকে আমরা তাদের সেবা করার সুযোগ পাচ্ছি।

ঐক্যফ্রন্ট থেকে নির্বাচিতদের সংসদে আসার আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, যারা জনগণের ভোট পেয়েছে, ভোটের মর্যাদা দিয়ে তারা সংসদে এসে জনগণের কথা বলুক। 

Print Friendly, PDF & Email
×

সারা বাংলা সারা দিন-এর সাথেই থাকুন!