ত্বকে চাই সঠিক যত্ন

মডেল : আফরোজা মুক্তা

প্রকৃতিরও কিন্তু খামখেয়ালিপনা আছে। আর প্রকৃতির এই খামখেয়ালিপনার দাপটে বছরের বেশির ভাগ সময়ই কিন্তু এখন গরম। তাপমাত্রার পারদ ক্রমেই ঊর্ধ্বমুখী, আর এই ক্রমবর্ধমান তাপমাত্রার সঙ্গে মোকাবেলা করতে গিয়ে আমাদের নাভিশ্বাস ওঠাটা খুবই স্বাভাবিক। কাঠফাটা রোদে কিছুক্ষণ বাইরে থাকলেই মন বারবার তাগিদ দিতে থাকে ঘরে ফেরার জন্য।

সূর্যের যা তেজ তাতে সান বার্ন, সানট্যান এগুলো এখন নিত্য-নৈমিত্তিক ব্যাপার। তা ছাড়া বাতানে আর্দ্রতা এই সময় বেশি থাকে বলে ঘাম ও তেল সিক্রেশানও বেশি হয়। ফলের্ যাশ, ব্রন ও ঘামের দুর্গন্ধ এগুলো হয় উপরি পাওনা। এই সমস্যাগুলোর হাত থেকে ত্বককে রক্ষা করতে গরম পড়ার একেবারে শুরু থেকেই যত্ন নিতে হবে। নিয়ম মেনে ক্লিনজিং, টোনিং, ময়শ্চারাইজিং এবং ক্রিম ব্যবহার করলেই সানবার্ন, সানট্যান, হিটর্ যাশ ও ব্রণের সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যাবে।

ক্লিনজিং : ত্বকের ধরন যেমনই হোক না কেন, গরমের দিনে দুই থেকে তিনবার মুখ পরিষ্কার করা অতি প্রয়োজন। কারণ গরমের সময় ত্বকে ঘাম ও তৈল নিঃসরণের পরিমাণ বেড়ে যায়। এর ওপর ধুলো-ময়লা, নোংরা, গাড়ির ধোঁয়া সব জমতে থাকে, যা লোমকূপে জমে ত্বকের ক্ষতি করে। ফলে ত্বক হয় অনুজ্জ্বল- নির্জীব এবং বাড়তে থাকের্ যাশ ও ব্রণের সমস্যা আর এই জন্যই ক্লিনজিং ইস এ মাস্ট, তবে সাবান দিয়ে মুখ পরিষ্কার না করাই ভালো, ত্বকের ধরন অনুযায়ী বিভিন্ন রকম ক্লিনজার পাওয়া যায়। স্বাভাবিক থেকে শুষ্ক ত্বকের জন্য উপযুক্ত হচ্ছে ক্লিনজিং ক্রিম।

মিশ্র প্রকৃতির জন্য ক্লিনজিং মিল্ক বা লোসন আদর্শ। মেডিকেটেড ক্লিনজার ব্যবহার করবেন যাদের ত্বকে ব্রণের সমস্য আছে। অতিরিক্ত তৈলাক্ত ত্বকের জন্য প্রয়োজন ডিপ পোর ক্লিনজার। কারণ এই ধরনের ক্লিনজার রোমকূপের একেবারে ভিতরে জমে থাকা তেল পরিষ্কার করতে সাহায্য করে। সারাদিনে কাজের যে চাপ তার রেশ ওঠে বাড়ি ফিরে।

কিন্তু তাই বলে মুখ পরিষ্কার না করে ঘুমানো একেবারেই অনুচিত। সারা দিনে জমে থাকা ময়লা ত্বক অনুযায়ী ক্লিনজার ব্যবহার করে পরিষ্কার করলে সমস্যাগুলো থেকে যেমন অনেকাংশে রেহাই পাওয়া যাবে, তেমনি ঘুমও ভালো হবে। এর পাশাপাশি গরমের সময় সারা দিনে কয়েকবার ঠান্ডা পানির ঝাপটা নিলে মুখও পরিষ্কার হবে আপনার ক্লান্তি বোধও দূর হবে।

Print Friendly, PDF & Email
×

সারা বাংলা সারা দিন-এর সাথেই থাকুন!