পাকুন্দিয়ায় গাড়ী ভাংচুরের মামলার প্রধান আসামী রেনু; গ্রেফতার ৫

মোঃ মুঞ্জুরুল হক মুঞ্জু, পাকুন্দিয়া (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি: কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়া অপসারিত উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ রফিকুল ইসলাম রেনু ১৩ সেপ্টেম্বর রবিবার শু-ডাউনকে কেন্দ্র করে শৃষ্ট পরিস্থিতে পৃথক দুটি মামলা হয়েছে। ১২ সেপ্টেম্বর শনিবার রাতে গাড়ী ভাংচুরের অভিযোগে ১৩ সেপ্টেম্বর রাতে ও সকালে দুই পক্ষের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার সময় ইউএনও অফিসের নৈশ্যপ্রহরী হাবিবুর রহমানের আহত হওয়ার ঘটনায় সোমবার ১৪ সেপ্টেম্বর সন্ধায় পাকুন্দিয়া থানায় এই মামলা দুটি দায়ের করা হয়।

দুটি মামলার মধ্যে গাড়ী ভাংচুরের ঘটনায় দায়ের করা মামলায় অপসারিত উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ রফিকুল ইসলাম রেনুকে প্রধান আসামী করে ১১ জনের নাম উলে­খ করে অজ্ঞাত আরও ২০-২৫ জনকে আসামী করা হয়েছে। রয়েল পরিবহনের মালিক মোঃ শরিফ বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন। এই মামলায় দিয়াপাড়া গ্রামের মোশারফ হোসেন (২৫) বাহাদিয়া গ্রামের আলামিন (২৮) কুড়তলা গ্রামের মতিউর রহমান (৪৭) পাকুন্দিয়া দলিল লেখক সমিতির সভাপতি ও কন্দরপদি গ্রামের বাছির উদ্দিন সরকার (৫৫) গান্ধারচর গ্রামের আরিফ হোসেন (২২) নামের ৫ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতারকৃতদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাটানো হয়েছে।

এদিকে ১৩ সেপ্টেম্বর দুপক্ষের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার সময় ইউএনও অফিসের নৈশ্য প্রহরী আহত হওয়ার ঘটনায় অজ্ঞাতনামা ১৫০-২০০ জনকে আসামী করে মামলা করেছেন।

পাকুন্দিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ মফিজুর রহমান পাকুন্দিয়া থানায় দুটি মামলা এবং ৫ জনকে গ্রেফতার করার তথ্য নিশ্চিত করেছে।

গাড়ী ভাংচুরের মামলায় ১৫ সেপ্টেম্বর বুধবার কিশোরগঞ্জ কোর্টে জামিনের আবেদন করিলে অপসারিত চেয়ারম্যান মোঃ রফিকুল ইসলাম রেনু ও সন্দেহভাজন ৩ জন সহ মোট ১২ জন জামিন লাভ করেন।

Print Friendly, PDF & Email
×

সারা বাংলা সারা দিন-এর সাথেই থাকুন!