পাকুন্দিয়ায় ঘনবসতিপূর্ণ এলাকায় মুরগীর খামার; বিষ্ঠার দূর্গন্ধে অতিষ্ট এলাকাবাসী

মোঃ মুঞ্জুরুল হক মুঞ্জু, পাকুন্দিয়া (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি: কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়া ঘনবসতিপূর্ণ এলাকায় মুরগীর খামার নির্মাণের ফলে দূর্গন্ধে অতিষ্ট এলাকাবাসী।

এসব পোল্ট্রি ফার্মে নেই কোন বৈধ ছাড়পত্র। নেই পরিবেশ অধিদপ্তরের অনুমোদন। এব্যাপারে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে এলাকাবাসী লিখিত অভিযোগ জানিয়েও কোন কাজ হয়নি। ভুক্তভোগীরা একত্রিত হয়ে স্বাক্ষর সংগ্রহ করে প্রতিকার চেয়ে স্থানীয় সংসদ সদস্য, কিশোরগঞ্জ জেলা প্রশাসক ও কিশোরগঞ্জের সিনিয়র কেমিষ্ট পরিবেশ অধিদপ্তরে লিখিত অভিযোগ দেওয়ার পরও কোন প্রতিকার পাওয়া যায়নি।

অভিযোগে জানা যায় উপজেলার এগারসিন্দুর ইউনিয়নের এগারসিন্দুর গ্রামের আঃ করিমের পুত্র দুলাল মিয়া ও তার ভাই এমদাদুল হক প্রাণী সম্পদের অনুমোদিত নিশাত পোল্ট্রি ফার্ম, নিবন্ধন নং-৩২ নামে একটি ফার্ম জামালের বাড়ির পাশে অবস্থিত। একই নিবন্ধনের সাইনবোর্ড টানিয়ে আগের ফার্মের ১০০ হাত পূর্ব পার্শ্বে মৃত মোহাম্মদ হোসেনের ছেলে মোঃ পিয়ার হোসেনের বাড়ির সামনে নির্মাণ করিতেছে আরেকটি ফার্ম। ফার্মের পাশের বাড়ীর মস্তোফা জানান পোল্ট্রি ফার্মের দূর্গন্ধে বাড়িতে থাকা যাচ্ছে না। ফার্মের দূর্গন্ধে কোন অতিথি আমাদের বাড়িতে আসিলে মুখ চেপে চলে যায়।

ঘনবসতি এলাকায় খামার গড়ে উঠায় আশপাশের লোকজন নাক চেপে চলা ফেরা করতে বাধ্য হন। এব্যাপারে পোল্ট্রি ফার্মের মালিক এমদাদুর রহমান জানান আমাদের এলাকায় নিয়ম মেনে পোল্ট্রি খামার গড়ে তুলা হয়নি বলে স্বীকার করেন।

এব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ নাহিদ হাসানের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান লিখিত অভিযোগটি তদন্ত করার জন্য প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তাকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ আনোয়ার হোসেনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান তদন্ত রিপোর্টটি নির্বাহী বরাবরে এখনো জমা দেয়া হয়নি।

Print Friendly, PDF & Email