৪ হাজার পোশাক শ্রমিক চাকরিচ্যুত

সম্প্রতি পোশাক কারখানায় নতুন মজুরি শ্রমিক কাঠামো নিয়ে অসন্তোষের কারণে চার হাজার কর্মী ছাঁটাই করা হয়েছে। তাদের কাউকে পুনর্বহাল করা হয়নি বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ তৈরি পোশাক প্রস্তুতকারক ও রফতানিকারক সমিতির (বিজিএমইএ) সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান।

রোববার বিজিএমইএ’র ভবনে বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত আর্ল রবার্ট মিলারের সঙ্গে পোশাক কারখানার মালিকদের বৈঠক শেষে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজিএমইএ সভাপতি বলেন, ‘বৈঠকে যুক্তরাষ্ট্র থেকে কটন আমদানি, কারখানা স্থাপন, জিএসপি সুবিধাসহ সমসাময়িক পোশাক শিল্পের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়। এ সময় মার্কিন রাষ্ট্রদূত সম্প্রতি শ্রমিক অসন্তোষের পর ১১ হাজার কর্মী ছাঁটাই হয়ে এমন তথ্য তারা শুনেছে বিষয়টি জানতে চায়।’

সিদ্দিকুর রহমান বলেন, ‘বিভিন্নভাবে ১১ হাজার কর্মী ছাঁটাইয়ের কথা বলা হলেও আমরা আমাদের সেল ও গোয়েন্দা সংস্থার মাধ্যমে সব খবর নিয়েছি। এ ধরনের কোনো তথ্য কারো কাছে নেই।‘

তবে সর্বশেষ শ্রমিক অসন্তোষের পর কর্মী ছাঁটাই হয়েছে। তবে ১১ হাজার কর্মী ছাঁটাইয়ের তথ্যটি সঠিক নয়। তখন ৪ হাজার শ্রমিক ছাঁটাই করা হয়। তাদের কাউকে এখনো পুনর্বহাল করা হয়নি।

কথায় কথায় শ্রমিকদের ছাঁটাই করা হচ্ছে শ্রমিক সংগঠনগুলোর এমন অভিযোগের উত্তরে বিজিএমইএ সভাপতি বলেন, ‘নোটিশ ঝুলিয়ে হঠাৎ কারখানা কোনো শ্রমিককে চাকরিচ্যুত করা যাবে না। এ বিষয়ে বিজিএমইএর পক্ষ থেকে সম্প্রতি একটি নির্দেশনাও জারি করা হয়েছে।

পণ্যের অগ্রাধিকারমূলক বাজার সুবিধা (জিএসপি) নিয়ে আলোচনায় আমরা এ সুবিধা পুনর্বহালের দাবি জানিয়েছি। কারণ জিএসপি বিষয়ে ১৬টি শর্ত দিয়েছিল। এর মধ্যে ১৫টি বাস্তবায়ন করেছি। তাই এ সুবিধা ফিরিয়ে দেয়া উচিত।

সিদ্দিকুর রহমান বলেন, ‘কটন আমদানির বিষয়ে আমরা বলেছি। বর্তমানে বিশ্বে সবচেয়ে বেশি কটন আমদানি করে বাংলাদেশ। আমরা যদি যুক্তরাষ্ট্র থেকে কটন আমদানি করে প্রক্রিজাতকরণের পর তাদের দেশে আবার রফতানি করি এক্ষেত্রে তারা কি সুবিধা দেবে? এ ছাড়া আমাদের অনেক ব্যবসায়ী ওই দেশে কটন মিল করতে আগ্রহী এক্ষেত্রে কি সুবিধা পাবে। আলোচনা করে এ বিষয়ে তারা জানাবে। এসব বিষয়ে আমরা একটি লিখিত প্রস্তাব দেব।’

রানা প্লাজা দুর্ঘটনার পর অনেক কারখানার পরিবেশ উন্নতি হয়েছে। তবে গত দুই বছর এ বিষয়ে কোনো মূল্যায়ন করা হচ্ছে না বলে অভিযোগ করেন তারা। এ বিষয়ে আমরা বলেছি এখন আমাদের নতুন মন্ত্রী দায়িত্ব নিয়েছেন আশা করছি তিনি এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেবে।

Print Friendly, PDF & Email
×

সারা বাংলা সারা দিন-এর সাথেই থাকুন!