স্বপ্ন দেখেও হেরে গেল বাংলাদেশ

এত কাছে এসেও ছোঁয়া হল না ইতিহাস। শুরুর ধাক্কার পরও ঘুরে দাঁড়িয়েছিল বাংলাদেশ। তরুণ নাঈমের ব্যাটে জয়ের দিকেই ছুটছিল বাংলাদেশ। কিন্তু পরপর মিথুন আর মুশফিক আউট হয়ে যাওয়ার একটু পর রানরেটের চাপে মারতে গিয়ে চলে গেলেন নাইমও। উইকেটে থাকা বিপ্লব আর মাহমুদুল্লাহ শেষ ৪ ওভারে ৪৯ রানের হিসেবটা কিছুতেই মেলাতে পারলেন না।

ভারতের দেওয়া ১৭৪ রানের চ্যালেঞ্জিং লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে শুরুতেই ধুঁকতে থাকে বাংলাদেশের দুই ওপেনার লিটন কুমার দাস ও মোহাম্মদ নাঈম শেখ। এই দুই ব্যাটসম্যানের শুরুটা ছিল সাদামাটা। দলীয় তৃতীয় ওভারে দীপক চাহারের পরপর দুই বলে ফিরেছেন লিটন দাস ও সৌম্য সরকার। ভারতের বিপক্ষে ব্যাট হাতে ব্যর্থ ছিলো লিটন দাস। তিন ম্যাচের মধ্যে একটি ম্যাচেও নিজেকে মেলে ধরতে পারেনি এই ব্যাটসম্যান। চাহারের শর্ট বল পুল করে ছক্কায় উড়াতে গিয়ে বাউন্ডারিতে ধরা পড়েন লিটন দাস। আউট হওয়ার আগে তিনি করেন ৮ বলে ৯ রান।

এরপর মিড অফে সহজ ক্যাচ দিয়ে ফেরেন সৌম্য সরকার। প্যাভিলিয়নে ফেরার আগে তিনি করেন ১ বলে ০ রান। সৌম্য আউট হওয়ার পর নাঈম শেখের সঙ্গে ক্রিজে এসে যোগ দেন সিরিজে প্রথমবার সুযোগ পাওয়া মোহাম্মদ মিথুন। এই দুই ব্যাটসম্যানের ব্যাটিং নৈপূণ্যে জয়ের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ। ইতিমধ্যে নাঈম শেখ ক্যারিয়ারের প্রথম টি-টোয়েন্টি হাফ সেঞ্চুরি তুলে নিয়েছে। নাঈম হাফ সেঞ্চুরির পর আবারও ধুকতে থাকে টাইগাররা। মোহাম্মদ মিথুনকে ফিরিয়ে ৯৮ রানের বড় জুটি ভেঙেছেন দীপক চাহার। ডানহাতি পেসারকে ছক্কায় উড়াতে গিয়ে লং অফে ধরা পড়েন মিথুন। আউট হওয়ার আগে ২৯ বলে করেন ২৭ রান। এর কিছু পরেই শূন্য রান করে প্যাভিলিয়নে ফিরে যায় মুশফিকুর রহিম। এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে ভারতের দুই ওপেনার রোহিত শর্মা ও শিখর ধাওয়ানের শুরুটা হয় সাদামাটা। দলীয় ৩ রানে শফিউলের তৃতীয় বলে সরাসরি বোল্ড হয়ে সাজঘরে ফিরে যায় ভারতীয় ওপেনার রোহিত শর্মা। আউট হওয়ার আগে এই ব্যাটসম্যান করেন ৬ বলে ২ রান।

এরপর টাইগার বোলারদের ওপর চড়াও হয়ে খেলতে থাকে আরেক ওপেনার শিখর ধাওয়ান। কিন্তু তার ইনিংস বড় করতে দেয়নি শফিউল ইসলাম। দলীয় ৩৫ রানে শফিউলের দ্বিতীয় বলে ওভার বাউন্ডারী হাঁকাতে গিয়ে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের হাতে ধরা পড়ে ডিপ মিড উইকেটে। আউট হওয়ার আগে এই ব্যাটসম্যান করেন ১৬ বলে ১৯ রান। দুই ওপেনার হারিয়ে ভারতের রানের চাকা যখন অচল হয়ে যায় তখন দলের হাল ধরেন লোকেশ রাহুল ও শ্রেয়াস আইয়ার। এরপর ভয়ংকর হয়ে উঠতে থাকা রাহুলকে ফিরিয়েছেন আল আমিন হোসেন। রাহুল প্যাভিলিয়নে ফেরার আগে করে ৩৫ বলে ৫২ রান। লোকেশ রাহুল ফিরে গেলেও টাইগার বোলাদের উপর চড়াও হয় শ্রেয়াস আইয়ার। তার ঝড়ো ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশের লক্ষ্য দাঁড়ায় ১৭৫ রান।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:
বাংলাদেশ: ১৪৪/১০ (১৯.২ ওভার)
ভারত:১৭৪ /৫ (২০ ওভার)
ফলাফল: ৩০ রানে ভারত জয়ী।

ভারত একাদশ: রোহিত শর্মা, শিখর ধাওয়ান, লোকেশ রাহুল, শ্রেয়াস আইয়ার, ঋষভ পন্ত, মনিশ পান্ডে, শিভাম দুবে, ওয়াশিংটন সুন্দর, দীপক চাহার, যুজবেন্দ্র চাহাল ও খলিল আহমেদ।

বাংলাদেশ একাদশ: লিটন কুমার দাস, সৌম্য সরকার, মোহাম্মদ নাঈম শেখ, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, আফিফ হোসেন, মোহাম্মদ মিথুন, আমিনুল ইসলাম বিপ্লব, শফিউল ইসলাম, মুস্তাফিজুর রহমান ও আল-আমিন হোসেন।

Print Friendly, PDF & Email